মডেল একটিভিটি টাস্ক

[New] September Model Activity Task Class 7 Part 6 | মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

নিচে পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পরিষদ দ্বারা সপ্তম শ্রেণীর জন্য যে September মাসের Model Activity Task Class 7 Part 6 দেওয়া হয়েছে তা প্রশ্ন এবং উত্তর সহ আলোচনা করা হলো। তোমরা এই Model Activity Task Class 7 Part 6 থেকে সমস্ত প্রশ্নের আলোচনা দেখতে পারবে। এখানে Model Activity Task Class 7 Part 6 All Subject এর সমাধান দেওয়া আছে।

আমাদের ওয়েবসাইটে সবসময় যেকোনো শ্রেণীর Model Activity Task খুব দ্রুততার সাথে আপলোড করা হয়। পরবর্তী Model Activity Task Class 7 Part 7 সবার আগে পাওয়ার জন্য অবশ্যই আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেল, ফেইসবুক পেজ Join করে রাখো।

September Model Activity Task Class 7 Part 6 All Subject

নিচ থেকে তোমার প্রয়োজনীয় বিষয়টি বেছে নিও ( Model Activity Task Class 7 Part 6 )

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

সপ্তম শ্রেণি

বাংলা (প্রথম ভাষা)

Model Activity Task Class 7 Part 6

Model Activity Task Class 7 Part 6 Bengali

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক সপ্তম শ্রেণী পার্ট ৬ বাংলা

১. নীচের প্রশ্নগুলির উত্তর দাও : (প্রতিটি প্রশ্নের মান – ২)

১.১ ‘বাইরের চলাটা আসল নয়।’ – প্রকৃত চলা কোন্‌টি ?

উত্তর- শিবতোষ মুখোপাধ্যায় প্রণীত ‘কার দৌড় কতদূর’ নামাঙ্কিত রচনায় লেখকের বিভিন্ন প্রাণী চলাচলের প্রতি নজর দিয়েছে। তার মনে হয়েছে বাইরে চলাটা একমাত্র সত্য নয়। তিনি জানিয়েছেন- এই সব চলার মাঝে যা সত্য কারের চলা তা হল মানুসের চলা । মানুষের মনের গতিবেগ আলোর গতিবেগ সম্পন্ন। একমুহূর্তেই মানুষ বিশ্বময় ঘুরে আসতে পারে। তার চলাচলের প্রতি নজর দিয়েছে। তার মনে হয়েছে বাইরে চলাটা একমাত্র সত্য নয়। তিনি জানিয়েছেন- এই সব চলার মাঝে যা সত্য কারের চলা তা হল মানুষের চলা । মানুষের মনের গতিবেগ আলোর গতিবেগ সম্পন্ন। একমুহূর্তেই মানুষ বিশ্বময় ঘুরে আসতে পারে তার কোথাও বাধা নেই। কোন নিষেধ নেই, মন যেন তার হ্রদ। লেখক জানিয়েছেন ‘মন রথ অবাধ।

১.২ ‘জবাবটা জেনে নেব মেজদাকে খুঁচিয়ে’। কোন প্রশ্নের জবাব মেজদার কাছে মিলবে ?

উত্তর- নোট বই কবিতায় বক্তা তার মেজদার কাছ থেকে ঝোলাগুড় কিসে দেয়, এই প্রশ্নের উত্তর জানবেন।

১.৩ ‘আপনি আমার সঙ্গে ঠাট্টা করছেন’। কোন কথার অবতারণাকে বক্তার ‘ঠাট্টা’ মনে হয়েছে ?

উত্তর- এই বিশাল হ্রদের জল যদি মেঘ হয়ে যায়, সেই মেঘ থেকে অন্য জায়গায় বৃষ্টি হবে। একসঙ্গে হঠাৎ বৃষ্টি বেড়ে গেলে পৃথিবীর দারুণ কোনো ক্ষতি হয়ে যাবে না!’ কী আর হবে! সাইবেরিয়ায় বড়জোর এক ইঞ্চি বেশি বরফ জমবে! তখন অসীমা হেসে ফেলে বলল, ‘আপনি আমার সঙ্গে ঠাট্টা করছেন।’

১.৪ জেমস এইচ. কাজিস কে ছিলেন ?

উত্তর- ১৯১১ খ্রিস্টাব্দের পরবর্তী সময় অর্থাৎ ১৯১৯ খ্রিস্টাব্দে তিনি দক্ষিণ ভারত পরিক্রমা বেরিয়েছিলেন। সেখানে “থিয়সফিক্যাল কলেজ” এর অধ্যক্ষ এবং রবীন্দ্রনাথের বন্ধু ছিলেন জেমস এইচ. কাজিনস।

১.৫ ‘এ ছবি আমি পরেও দেখেছি’। -কোন্ দৃশ্যবর্ণনা প্রসঙ্গে একথা এসেছে ?

উত্তর- মুখ ভর্তি পান নিয়ে গলায় বাঁধা হারমোনিয়াম বাজাতে বাজাতে কাজী নজরুল গাইলে- এখানে এই দৃশ্যপটের কথা বলা হয়েছে।

১.৬ ‘তাদের রাজত্ব হের অক্ষুণ্ণ কেমন’ -কাদের রাজত্ব কেন অক্ষুণ্ণ রয়েছে বলে কবি মনে করেন ?

উত্তর- বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি কামিনী রায় প্রণীত স্মৃতিচিহ্ন নামাঙ্কিত কবিতায় যারা মনে করে বিশাল অট্টালিকা তৈরীর মধ্যে দিয়ে নিজেদের নাম এই ধরণীর বুকে রেখে যাবেন, তারা ভুল করেছেন। কেননা আর্থিক সমৃদ্ধির কারণে কোন মানুষ পৃথিবীতে নিজের নাম স্থায়ী করে রাখবেন এটা আদৌ সম্ভব নয়। তাই তাদের রাজত্ব অক্ষুন্ন থাকবে না ।

১.৭ ‘নীরব এখানে অমর কিষাণপাড়া’। – কিষাণপাড়াকে ‘অমর’ বলা হয়েছে কেন ?

উত্তর- উদ্ধৃত কবিতাংশটি গৃহীত হয়েছে কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য প্রণীত চিরদিনের কিষাণপাড়ার প্রকৃতি এবং মানুষের জীবন শান্ত। কোনোরকম ব্যস্ততা সেখানে নেই,নেই কোন কোলাহল। দুর্ভিক্ষের পরেও কিষাণপাড়ায় মানুষ আবার কাজের মধ্য দিয়ে জেগে ওঠে। নিজ নিজ পেশায় কাজ করে চলে। কোনোরকম ব্যস্ততা সেখানে নেই,নেই কোন কোলাহল। দুর্ভিক্ষের পরেও কিষাণপাড়ায় মানুষ আবার কাজের মধ্য দিয়ে জেগে ওঠে। নিজ নিজ পেশায় কাজ করে চলে। দুর্ভিক্ষের হতাশা বা বিপন্নতা এখানে জীবনকে থামিয়ে দিতে পারে না। তাই কিষাণপাড়াকে কবি অমর বলেছেন।

২. নীচের প্রশ্নগুলির উত্তর নিজের ভাষায় লেখো : (প্রতিটি প্রশ্নের মান- ৩)

২.১ ‘জীবনের ৪৪০ তে মানুষ বিশ্বকীর্তি স্থাপনা করেছে’ মানুষের সেই কীর্তির কথা ‘কার দৌড় কদ্দুর’ রচনায় – কীভাবে বর্ণিত হয়েছে ?

উত্তর- শিবতোষ মুখোপাধ্যায় প্রণীত ‘কার দৌড় কদূর’ নামাঙ্কিত রচনায় লেখক বলেছেন মানুষ এখন নিজে চলেই ক্ষান্ত নয়। সে অন্য সবকিছুকেও চালাতে সমান উৎসুক। জাহাজ, রেল, প্লেন, জেট। এখন মানুষ আকাশটাকে নতুন করে ঘৌড়দৌড়ের মাঠ করে তুলেছে। সেখানে নতুন বাজি ধরেছে যে সে ত্রিভুবনেশ্বর হবে, স্বর্গমর্ত তোলপাড় করবে। তাই জীবনের ৪৪০ তে মানুষ বিশ্বকীর্তি স্থাপন করেছে।

২.২ ‘তুমি একটা স্পাই’। কোন পরিস্থিতিতে বক্তার একথা মনে হয়েছে ?

উত্তর- স্পাই’ শব্দের অর্থ হল চর’ অর্থাৎ গুপ্ত সংবাদ আদানপ্রদান করে, কিন্তু সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় রচিত মেঘ-চোর গল্পে আলোচ্য উক্তিটিতে স্পাই’ বলা হয়েছে অসীমাকে, বলেছেন বৃষ্টিবিজ্ঞানী পুরন্দর চৌধুরি।

যখন পুরন্দর চৌধুরি জানান তার রেকর্ড করার নামের সঙ্গে অসীমার নামটাও থাকবে, তখন অসীমা তার নিজের পরিচয় দেয়। কারপভের মেয়ে বলে এবং বলে আমার মা বাঙালি মেয়ে।” তখন পুরন্দর চৌধুরি অসীমাকে স্পাই বলেছিলো।

২.৩ সরলা দেবী তার ‘জীবনের ঝরাপাতা’ গ্রন্থে রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্পর্কে কোন তথ্য পরিবেশন করেছেন ?

উত্তর- আমার সোনার বাংলা’ গানটি প্রথম গাওয়া হয় ১৯০৫, আগস্ট মাসের ২৫ তারিখে। এই গানটির সুরের বিষয়ে সরলাদেবী তাঁর জীবনের ঝরা পাতা’ গ্রন্থে বেশ কিছু তথ্য দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, কর্তা দাদামহাশয় চুঁচুড়ায় থাকার সময় সময়মতো বোটের মাঝিদের কাছ থেকে অনেকগুলি বাউল আঙ্গিকেরগান সংগ্রহ করেছিলেন। তিনি জানিয়েছেন—“ যা কিছু শিখতুম তাই রবিমামাকে শোনাবার জন্য প্রাণ ব্যস্ত। থাকত তার মতো সমজদার আর কেউ ছিল না।”

রবীন্দ্রনাথ এই গানগুলি মন দিয়ে শুনতেন এবং সেই সুর অনুসারে। নিজের গান রচনা করতেন। ‘আমার সোনার বাংলা’ হল তেমন একটি গান। যা বোটের মাঝির কাছ থেকে আহরিত এবং সরলা দেবীর সুরে বসানো।

২.৪ এই ছিল তখনকার কোনো স্বদেশি মিটিং-এর রীতি’। — রীতিটি কী ?

উত্তর- রামকুমার চট্টোপাধ্যায় কাজী নজরুলের গান’ শীর্ষক গদ্যাংশে যে সময়ের কথা বলেছেন, সেই সময়ে যে কোনো স্বদেশি মিটিং – এর রীতিই ছিল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর বক্তৃতার আগে কাজী নজরুল ইসলামের সংগীত পরিবেশন।

২.৫ ‘সবুজ ফসলে সুবর্ণ যুগ আসে’। — উদ্ধৃতাংশের তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো।

উত্তর- উদ্ধৃত কবিতাংশটি গৃহীত হয়েছে কৰি সুকান্ত ভট্টাচাৰ্য হয়েছে কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য প্রণীত ‘চিরদিনের’ কবিতা থেকে৷

১৩৫০ সালে দুর্ভিক্ষের দিনে মানুষের কি অসহায় অবস্থা হয়েছিল সেই গল্পের কথা বলা হয়েছে। দুর্ভিক্ষের পর আবার নতুন করে বেঁচে থাকার প্রচেষ্টা শুরু হয়। চারিদিকে দেখা যায় প্রাণের স্পন্দন৷ সকাল ঘোষিত পাখির ডাকে। কামার, কুমোর, তাঁতী একসঙ্গে কাজ করে৷ সারাটা দুপুর চাষী জমিতে পড়ে থাকে। কৃষক-বধূ জল আনতে গিয়ে থমকে দাঁড়ায় পথে৷ তার চোখে পড়ে সবুজ ফসলের সুবর্ণ যুগ আসে৷

৩. নীচের প্রশ্নগুলির উত্তর দাও :

৩.১ ‘ঋ, র, য এই তিন বর্ণের পরের শব্দের মধ্যে ন>ণ হয়”। প্রতিক্ষেত্রে একটি করে উদাহরণ দাও।  (৩)

উত্তর- ঋণ, বর্ণ, স্মরণ, বরণ, তৃণ, 1 রণ, বরণ, তৃণ, শীর্ণ , ঘৃণা  ইত্যাদি |

৩.২ ‘পিতৃ ও মাতৃ শব্দের সঙ্গে স্বসৃ শব্দের যোগ হলে স্বসৃ শব্দের প্রথম স্ হয় যাঁ। উদাহরণ দাও।  (২)

উত্তর- মাতুঃষ্বাসা বা মাতৃষ্বাসা [ মাতুঃ + স্বস্, মাতৃ + স্বস্ ] – এর বাংলা অর্থ হলো

– মায়ের ভগিনি , মাসি |

পিতৃম্বাসা( পিতৃ + স্বস্)- এর বাংলা অর্থ হলো- বাবার ভাই- কাকু, জেঠু।

৩.৩ ভাবপ্রকাশক ধ্বন্যাত্মক শব্দের প্রয়োগে একটি বাক্য রচনা করো।  (২)

উত্তর- কনকনে শীত আমি একদম পছন্দ করি না। (এখানে কনকনে হলো ভাবপ্রকাশ ধন্যাত্মক শব্দ)।

Model Activity Task Class 7 Part 6

MODEL ACTIVITY TASK

CLASS – VII

ENGLISH

Model Activity Task Class 7 Part 6

Model Activity Task Class 7 Part 6 English

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক সপ্তম শ্রেণী পার্ট ৬ ইংরেজি

ACTIVITY 1

Read the following passage and answer the questions that follow:

In 1869, Bose joined Hare School and six years later he was admitted to St. Xavier’s School in Calcutta. He passed the Entrance Examination and joined St. Xavier’s College of Calcutta. It was here that he came in contact with Jesuit Father Eugene Lafont who played a significant role in developing his interest in natural science. Later, Bose went to England and secured admission in Christ College, Cambridge, to study Natural Science. In 1884, he received the Natural Science Tripos from the University of Cambridge and a BSc. Degree from the University of London.

A. Fill in the table with information from the passage: 1 × 3 = 3

 WhenWhat happened 
(i)1869  
(ii) 1875  
(iii)1884 
Model Activity Task Class 7 Part 6

Ans:

 WhenWhat happened
(i)1869Bose Joined HareSchool
(ii)1875Bose was admitted to St. Xavier’s school
(iii)1884Bose received the Natural Science Tripos from the University of Cambridge and a BSc. Degree from the University of London
Model Activity Task Class 7 Part 6

B. Answer the following questions:  2 × 3 = 6

(i) From which school did J.C. Bose pass Entrance Examination ?

Ans: J.C Bose passed the Entrance Examination and joined St. Xavier’s College of Calcutta.

(ii) Who influenced Bose to study Natural Science ?

Ans: Jesuit Father Eugene Lafont influenced J.C Bose to study natural science.

(iii) In which college of England did Bose take admission ?

Ans: Bose took admission in Christ College, Cambridge in England.

ACTIVITY 2

Do as directed: 1 × 3 = 3

(i) The cheetah is the fastest animal. (Use Positive degree of the adjective)

Ans: No other animal is fast as cheetah.

(ii) Very few queens were as powerful as Elizabeth I. (Use Superlative degree)

Ans: Elizabeth I was one of the most powerful queen.

(iii) No other girl of our school is so pretty as Tania. (Use Comparative degree)

Ans: Tania is pretteir than any other girl in our school.

ACTIVITY 3

Match column A with column B: (1 × 6 = 6)

 A
(i)PhilatelistAn artist who makes sculptures 
(ii)AtheistOne who has the negative outlook in life 
(iii)SculptorA place where bees are kept 
(iv)ApiaryCertain to happen 
(v)PessimistOne who collects stamps 
(vi)Inevitable A person who does not believe in the existence of God
Model Activity Task Class 7 Part 6

Ans: Model Activity Task Class 7 Part 6

 A
(i)PhilatelistOne who collects stamps
(ii)AtheistA person who believe in the does not existence of God
(iii)SculptorAn artist who makes sculptures
(iv)ApiaryA place where bees are kept
(v)PessimistOne who has the negative outlook in life 
(vi)Inevitable Certain to happen
Model Activity Task Class 7 Part 6

ACTIVITY 4

Suppose your cousin has never been to your village. Write a letter (in about 70 words) to him/her describing your village and inviting him/her to visit your village. (7)

Ghola bazaar, Sodepur

Kolkata :700111

Dear Rupsa, 

 If you haven’t had any plan for the coming vacation, why don’t you visit our Village? It is a beautiful village beside a river. It would be a pleasant relief from the dust, smoke and loud noises of the city. Here is no crowd, no maddening din so hurry nor any terror of traffic. It is a place of peace.

Here you have an open vies of the village, gentle breeze over the waving green fields and the rippling of the river. Here you hear various birds singing sweetly in the trees. You are beneath the clear blue sky, very close to the sounds and sights of nature. You find here calmness and happiness on the faces of the people. Do come and enjoy.

 Please let me know the date when you are coming. I shall receive you at the station. Tell, you are willing.

 Yours ever,

           Deepika

Name : Rupsa Roy 

C/O: Paresh Roy  

Address: Nager Bazar, Dumdum

Model Activity Task Class 7 Part 6

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

সপ্তম শ্রেণি

ইতিহাস

Model Activity Task Class 7 Part 6

Model Activity Task Class 7 Part 6 History

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক সপ্তম শ্রেণী পার্ট ৬ ইতিহাস

১. বেমানান শব্দ বা নামটি চিহ্নিত করো : ১ x ৩=৩

১.১ বাবর, হুমায়ূন, শেরশাহ, আকবর

উত্তর- শেরশাহ

১.২ প্রতাপাদিত্য, কেদার রায়, ইশা খান, বৈরম খান

উত্তর- বৈরম খান

১.৩ জাবত, কানুনগো, কারোরী, জিজিয়া

উত্তর- জিজিয়া

২. সত্য বা মিথ্যা নির্ণয় করো : ১ x ৩=৩

২.১ ‘দাগ’ ও ‘হুলিয়া’ ব্যবস্থা চালু রাখেন শেরশাহ।

উত্তর- সত্য

২.২ ১৫৭৬ খ্রিস্টাব্দে হলদিঘাটির যুদ্ধে আকবর রানা প্রতাপকে পরাজিত করেছিলেন।

উত্তর- সত্য

২.৩ মনসবদারি ও জায়গিরদারি ব্যবস্থা বংশানুক্রমিক ছিল।

উত্তর- মিথ্যা

৩. সংক্ষেপে উত্তর দাও (৩০-৫০টি শব্দ) : ২ x ২=৪

৩.১ ‘দাক্ষিণাত্য ক্ষত’ বলতে কী বোঝো ?

উত্তর- বাদশাহ ঔরঙ্গজেব দাক্ষিণাত্যের রাজ্যগুলি ও মারাঠা নেতা শিবাজিকে দমন করার জন্য রাজধানী ছেড়ে প্রায় ২৫ বছর দক্ষিণ ভারতে কাটিয়েছিলেন। কিন্তু বাদশাহ যা ভেবেছিলেন তা হল না। এর ফলে মোগলদের অনেক আর্থিক ক্ষতি হল, স্যার যদুনাথ সরকার একেই দাক্ষিণাত্য ক্ষত বলে অভিহিত করেছেন। ঔরঙ্গজেবের মৃত্যুর পর মোঘল সাম্রাজ্যের পতনে এই ‘দাক্ষিণাত্য ক্ষত’ অনেকাংহেই দায়ী ছিল।

৩.২ ‘দীন-ই ইলাহি’ কী ?

উত্তর- দীন-ই-ইলাহি হল সম্রাট আকবর প্রবর্তিত একটি সম্পূর্ণ নতুন ধর্মীয় মতাদর্শ। অন্যান্য ধর্মের সারবস্তু নিয়ে তিনি এই ধর্ম গড়ে তুলেছিলেন দীন-ই-ইলাহি এর অর্থ হলো ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাস 1582 খ্রিস্টাব্দে আকবর তার বিখ্যাত দীন-ই-ইলাহি মতবাদ ঘোষণা করেছিলেন।আবুল ফজল ও বদাউনি, এই ধর্মমতকে তৌহিদ – ই – ইলাহি বা ‘স্বর্গীয় একেশ্বরবাদ’ বলে উল্লেখ করেছেন।

৪. নিজের ভাষায় লেখো (১০০-১২০টি শব্দ) : ৫ x ১=৫ Model Activity Task Class 7 Part 6

শেরশাহের যে-কোনো দুটি প্রশাসনিক সংস্কার সম্পর্কে সংক্ষেপে লেখো।

উত্তর- ভূমিকা : সম্রাট শের শাহ ছিলেন বিজেতা হিসেবে শ্রেষ্ঠ, আর শাসক হিসেবে শ্রেষ্ঠতম। দিল্লির শাসক হিসেবে তিনি মাত্র ৫ বছর (১৫৪০-১৫৪৫ খ্রি.) রাজত্ব করেছিলেন। কিন্তু এই অল্প সময়ের মধ্যেই শাসনব্যবস্থার সর্বত্র তিনি কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছিলেন। তাঁর শাসনব্যবস্থার মধ্যে অনেক মানবিক চিন্তার পরিচয় পাওয়া যায়।

শের শাহের প্রশাসনিক সংস্কার :

i) ভূমিরাজস্ব : ভূমিরাজস্ব ব্যবস্থার ক্ষেত্রে শের শাহ অনন্য প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন। তিনি পাট্টা’ ও ‘কবুলিয়ত’’ ব্যবস্থা চালু করেন। শের শাহ কৃষককে কৃষকের নাম, জমিতে কৃষকের অধিকার এবং তাকে কত রাজস্ব দিতে হবে তা লিখে যে দলিল দিতেন,তাকে পাট্টা বলা হত। পাট্টাপ্রাপ্ত কৃষকরা রাজস্ব দেওয়ার কথা স্বীকার বা কবুল করে সরকারকে যে দলিল সই করে দিত, তাকে কবুলিয়ত বলা হত।

ii) যোগাযোগ ব্যবস্থা : যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে সুদীর্ঘ ও প্রশস্ত রাজপথ নির্মাণ শের শাহের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কীর্তি। তিনি পূর্ববঙ্গের সোনারগাঁ থেকে পেশোয়ার পর্যন্ত ১৪০০ মাইল দীর্ঘ পথ নির্মাণ করেন, যা সড়ক-ই আজমস’ বা গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রোড বা জি টি রোড নামে পরিচিত। তিনি আগ্রা থেকে বুরহানপুর ও আগ্রা থেকে যোধপুর পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ করেন। তিনি পথিক ও বণিকদের সুবিধার জন্য রাস্তার ধারে ধারে অনেক সরাইখানা নির্মাণ করেছিলেন। তিনিই প্রথম ঘোড়ার পিঠে ডাক আদানপ্রদানের ব্যবস্থা করেন।

উপসংহার : মধ্যযুগে মাত্র পাঁচ বছর রাজত্ব করে শের শাহ উন্নত শাসনকাঠামো রচনা করেন। তাই তিনি আজও ভারত ইতিহাসে স্মরনীয় হয়ে আছেন।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

সপ্তম শ্রেণি

পরিবেশ ও ভূগোল

Model Activity Task Class 7 Part 6

Model Activity Task Class 7 Part 6 Environment and Geography

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক সপ্তম শ্রেণী পার্ট ৬ পরিবেশ ও ভূগোল

১. বিকল্পগুলি থেকে ঠিক উত্তরটি নির্বাচন করে লেখো : ১ x ৩ = ৩

১.১ ‘পৃথিবীর ছাদ’ যে মালভূমিকে বলা হয় সেটি হলো-

ক) ছোটোনাগপুর মালভূমি

খ) মালব মালভূমি

গ) পামীর মালভূমি

ঘ) লাদাখ মালভূমি

উত্তর- পামীর মালভূমি

১.২ নদীর উচ্চ প্রবাহে।’ আকৃতির উপত্যকা সৃষ্টির অন্যতম প্রধান কারণ হলো —

ক) ভূমির ঢাল কম থাকা

খ) উপনদীর সংখ্যা বেশি থাকা

গ) নদীর নিম্নক্ষয়ের ক্ষমতা বেশি হওয়া

ঘ) নদীর পার্শ্বক্ষয়ের ক্ষমতা বেশি হওয়া

উত্তর- নদীর নিম্নক্ষয়ের ক্ষমতা বেশি হওয়া

১.৩ যে রূপান্তরিত শিলা বিভিন্ন সৌধ নির্মাণে কাজে লাগে তা হলো—

ক) চুনাপাথর

খ) কাদাপাথর

গ) ব্যাসল্ট

ঘ) মার্বেল

উত্তর- মার্বেল

২. স্তম্ভ মেলাও – (১ x ৩ = ৩)

‘ক’ স্তম্ভ‘খ’ স্তম্ভ
 ২.১ কিলিমাঞ্জারো২.২ গ্রানাইট২.৩ মিয়েন্ডার   i) আগ্নেয় শিলাii) নদীর মধ্যপ্রবাহiii) আগ্নেয় পর্বত 
Model Activity Task Class 7 Part 6

উত্তর-

‘ক’ স্তম্ভ‘খ’ স্তম্ভ
 ২.১ কিলিমাঞ্জারো২.২ গ্রানাইট২.৩ মিয়েন্ডার   iii) আগ্নেয় পর্বতi) আগ্নেয় শিলাii) নদীর মধ্যপ্রবাহ 
Model Activity Task Class 7 Part 6

৩. সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও:

৩.১ ভূমির ঢাল ও উচ্চতার ভিত্তিতে মালভূমি ও সমভূমির পার্থক্য নিরূপণ করো।  ২

উত্তর-  

 বিষয়  সমভূমি  মালভূমি 
উচ্চতা সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে 300 মিটারের কম উচ্চতা বিশিষ্ট হয়।সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে 300 মিটারের অধিক উচ্চতা বিশিষ্ট হয়।
ঢালমৃদু ঢাল বিশিষ্ট হয়। উপরি ভাগ সমতল কিন্তু পার্শ্ব দেশ খাড়া ঢাল যুক্ত হয়। 
Model Activity Task Class 7 Part 6

৩.২ নীলনদের উপর কী উদ্দেশ্যে আসোয়ান বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছিল ? (৩)

উত্তর- আসওয়ান বাঁধ মিশর এবং সুদানের উত্তর সীমান্তে অবস্থিত একটি বাঁধ। এটি প্রায় 33.600 কিলোমিটার সেচ ভূমির জন্য জল সরবরাহ করে। এটি মিশর ও সুদান উভয়ের সেচের চাহিদা পূরণ করে। বাঁধটি নদীর প্রবাহ নিয়ন্ত্রণের জন্য নির্মিত হয়েছিল।নীল নদের বন্যা প্রতিবছর ঘটে, প্রায় অর্ধেক জল অপচয় করে সমুদ্রে চলে যায়। এই অপচয় রোধ করতে বাঁধটি নির্মাণ করা হয়। প্রকল্পটির নির্মাণ কাজ 1960 সালে শুরু হয়েছিল এবং 1968 সালে সম্পন্ন হয়েছিল। এটি আনুষ্ঠানিকভাবে 1971 সালে উদ্বোধন করা হয়েছিল।

এই বাঁধ নির্মাণের কয়েকটি উদ্দেশ্য ছিল নিম্নরুপ –

১. নদীর প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করে বন্যা নিয়ন্ত্রণ করা এবং সারা বছর সেচের জন্য জল সরবরাহ করা।

২. নীল নদ জুড়ে চলাচলের উন্নতি করা।

৩. পর্যটন এবং মাছ ধরার শিল্পকে উপকৃত করা।

৪. জলবিদ্যুতের পরিমাণ বৃদ্ধি করা।

৫. খরার সময় জল সরবরাহ করতে সাহায্য করা।

৪. “মানুষের নানাবিধ ক্রিয়াকলাপ নদীর উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে’– বক্তব্যটির যথার্থতা বিচার করো।  ৫

উত্তর- মানুষের জীবনের সঙ্গে নদীর সম্পর্ক এত নিবিড় হলেও মানুষের কিছু কিছু কাজ নদীর স্বাভাবিক ছন্দকে নষ্ট করছে।

কৃষি ব্যবস্থার প্রসার, শিল্পায়ন, নগরায়ন, ইত্যাদি নানাভাবে নদীকে প্রভাবিত করছে। বন্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য নদীর পাড়ে কৃত্রিম বাঁধ তৈরি করলে সাময়িক সুফল পাওয়া গেলেও শেষ পর্যন্ত তা আরও ভয়াবহ বন্যারই কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। একদিকে কৃষিজমি থেকে ধুয়ে আসা পলিতে নদী ক্রমশ ভরাট হচ্ছে। অন্যদিকে সেচের জলের জলের জোগান দিতে নদী ক্রমশ শুকিয়ে যাচ্ছে। শহর শিল্পাঞ্চলের বর্জ্য রাসায়ানিক পদার্থ নদীতে অবাধে মিশে গিয়ে নদীর জল ক্রমশ বিষাক্ত হয়ে উঠছে।

আরও নানা মনুষ্য সৃষ্ট কারনে নদী তার স্বাভাবিক ছন্দ হারিয়ে ফেলছে এমনকি অনেক নদী বিলুপ্তও হয়ে যাচ্ছে। তাই উপরের বক্তব্যটি যথার্থ।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

সপ্তম শ্রেণি

পরিবেশ ও বিজ্ঞান

Model Activity Task Class 7 Part 6

Model Activity Task Class 7 Part 6 Environment and Science

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক সপ্তম শ্রেণী পার্ট ৬ পরিবেশ ও বিজ্ঞান

১. ঠিক উত্তর নির্বাচন করো : ১ x ৩ = ৩

১.১ যেক্ষেত্রে আলোর বিক্ষিপ্ত প্রতিফলন ঘটে না সেটি হলো –

(ক) দেয়াল   

(খ) কাগজ   

(গ) কাপড়   

(ঘ) আয়না

উত্তর- আয়না

১.২ যেটি পরিবেশবান্ধব শক্তির উৎস নয় সেটি হলো –

(ক) সূর্য   

(খ) বায়ুপ্রবাহ   

(গ) জীবাশ্ম জ্বালানি   

(ঘ) জৈব গ্যাস

উত্তর- জীবাশ্ম জ্বালানি

১.৩ রূপান্তরিত অর্ধবায়বীয় কাণ্ড দেখা যায় যে উদ্ভিদে সেটি হলো –

(ক) আলু   

(খ) কচুরিপানা   

(গ) বেল   (

ঘ) কুমড়ো

উত্তর- কচুরিপানা

২. ঠিক বাক্যের পাশে “image 48” আর ভুল বাক্যের পাশে ‘x’ চিহ্ন দাও : ১ x ৩ = ৩

২.১ কোনো দণ্ডচুম্বকের জ্যামিতিক দৈর্ঘ্য তার চৌম্বক দৈর্ঘ্যের চেয়ে সামান্য কম হয়।

উত্তর- ঠিক  image 48

২.২ কাণ্ডের যে অংশ থেকে শাখা বেরোয় তাকে পর্বমধ্য বলে।

উত্তর- ভুল  x

২.৩ তেঁতুল পাতা হলো একক পত্রের একটি উদাহরণ।

উত্তর- ভুল  x

৩. একটি বা দুটি বাক্যে উত্তর দাও : ২ x ২ = ৪

৩.১ চালু লাইনের কাজ করার সময় ইলেকট্রিক মিস্ত্রির কীসের ওপর দাঁড়িয়ে কাজ করা উচিত – লোহার চেয়ার না কাঠের টুল ? কেন ?

উত্তর- চালু লাইনের কাজ করার সময় ইলেকট্রিক মিস্ত্রির কাঠের টুলের ওপর দাঁড়িয়ে কাজ করা উচিত। কারণ, কাঠ হলো তড়িতের কুপরিবাহী, অর্থাৎ কাঠের মধ্য দিয়ে তড়িৎ চলাচল করতে পারে না। তাই ইলেকট্রিক মিস্ত্রিরা কাজ করার সময় কাঠের টুলের ওপর দাঁড়িয়ে কাজ করলে বৈদ্যুতিক শক খাওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

৩.২ উদ্ভিদের মূলের প্রধান কাজ কী কী ?

উত্তর- উদ্ভিদের মূলের প্রধান কাজগুলি হলো:

i. উদ্ভিদের মূল উদ্ভিদকে মাটির সঙ্গে শক্তভাবে আবদ্ধ করে রাখে ।

ii. উদ্ভিদের মূল মাটি থেকে জল ও প্রয়োজনীয় খনিজ লবণ শোষণে সাহায্য করে।

৪. তিন-চারটি বাক্যে উত্তর দাও : ৩ x ২ = ৬

৪.১ সূচিছিদ্র ক্যামেরার ছিদ্রটি বড়ো করা হলে প্রতিকৃতির কী পরিবর্তন হবে? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর-

সুচিছিদ্র ক্যামেরার ছিদ্রটি বড়ো করা হলে প্রতিকৃতি অস্পষ্ট হয়ে যাবে কারণ, সুচিছিদ্র ক্যামেরার ছিদ্রটি বড়ো করা হলে তা  অসংখ্য ছোটো ছোটো ছিদ্রের সমষ্টিরূপে কাজ করে। ফলে প্রতিটি সুক্ষ্ম ছিদ্র এক একটি পৃথক পৃথক প্রতিকৃতি তৈরি করে। এর ফলে সমস্ত প্রতিকৃতি গুলি মিশে গিয়ে একটি অস্পষ্ট প্রতিকৃতি তৈরী করে।

৪.২ সমুদ্রের মাছ কীভাবে নিজের দেহে জলের পরিমাণ স্বাভাবিক রাখে ব্যাখ্যা করো।

উত্তর- নিম্নলিখিত পদ্ধতির মাধ্যমে সমুদ্রের মাছ নিজের দেহে জলের পরিমান স্বাভাবিক রাখে :

i. সমুদ্রের মাছ ঘন মূত্র ত্যাগ করে ফলে তাদের দেহ থেকে খুব কম পরিমাণ জল বেরিয়ে যায়।

ii. সমুদ্রের মাছ ফুলকার মাধ্যমে দেহের অতিরিক্ত আয়ন ত্যাগ করে।

Model Activity Task Class 7 Part 6

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক-২০২১

স্বাস্থ্য ও শারীরশিক্ষা

সপ্তম শ্রেণি

স্বাস্থ্যশিক্ষা ও যোগাসন

Model Activity Task Class 7 Part 6

Model Activity Task Class 7 Part 6 Health Study And Yoga

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক সপ্তম শ্রেণী পার্ট ৬ স্বাস্থ্যশিক্ষা ও যোগাসন

১। সঠিক উত্তরটিকে বেছে নিয়ে (v) চিহ্ন দাও :

(ক) মেদাধিক্যের কারণ কী ?

(১) শরীরচর্চার অনভ্যাস   

(২) হরমোনের সমস্যা   

(৩) ফাস্টফুড খাওয়া   

(৪) সব কয়টি

উত্তর- সব কয়টি

(খ) সাধারণত পুর্ণবয়স্ক পুরুষদের দেহের ওজনের কত শতাংশ মেদ থাকে?

(১) ১০%   

(২) ১৫%   

(৩) ২%   

(৪) ২৫%

উত্তর- ১৫%

(গ) মেদবৃদ্ধি রুখতে কী করতে হবে ?

(১) শরীরচর্চা  

(২) পরিমিত খাওয়া   

(৩) সঠিক জীবনশৈলী   

(৪) সব কয়টি

উত্তর- সব কয়টি

(ঘ) খাদ্য থেকে প্রাপ্ত দেহের চাহিদার অতিরিক্ত ক্যালোরি দেহের কি বৃদ্ধি ঘটাতে পারে ?

(১) হৃৎপিণ্ডের কার্যক্ষমতা বাড়ায়  

(২) মেদাধিক্য ঘটায়  

(৩) স্নায়ুর কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে  

(৪) হাড়ের গঠন সুদৃঢ় করে

উত্তর- মেদাধিক্য ঘটায়  

২. সঠিক উত্তরের পাশে সত্য এবং ভুল উত্তরের পাশে মিথ্যা লেখো।

(ক) বিদ্যালয়ের মিড-ডে মিলের আহার একটি পুষ্টিবর্ধক কর্মসূচি।

উত্তর- সত্য

(খ) মেদ ঝরাতে ফাস্টফুড বর্জন করতে হবে।

উত্তর- সত্য

(গ) ব্যায়াম করলে হৃদপিণ্ডের কার্যকারিতা বৃদ্ধি পায়।

উত্তর- সত্য

(ঘ) প্রাণায়াম করলে ফুসফুসের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

উত্তর- মিথ্যা

(ঙ) খেলাধুলো করলে শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশ ঘটে।

উত্তর- সত্য

৩। নীচের যোগাসনের ভঙ্গিগুলি শনাক্ত করে, ছবির পাশের ফাঁকা ঘরে যোগাসনটির নাম লেখো।

image 19
Model Activity Task Class 7 Part 6

৪। পূর্ণধনুরাসন ও শীতলী প্রাণায়ামের মধ্যে শ্বাসক্রিয়া, প্রারম্ভিক অবস্থান, দেহভঙ্গি, উপকারিতা ও সতর্কতা প্রভৃতি বিষয়ে মৌলিক পার্থক্যগুলি লেখো।

উত্তর-   পূর্ণধনুরাসন –

শ্বাসক্রিয়া: শ্বাসপ্রক্রিয়া স্বাভাবিক

প্রারম্ভিক অবস্থা ও দেহভঙ্গি: প্রথমে উপুড হয়ে পা জোড়া রেখে সোজাভাবে শুতে হবে। হাত শরীরের পাশে থাকবে।

১. দু – পা হাঁটু থেকে মুড়ে ভাজ করতে হবে।

২. এবার ডান হাত দিয়ে ডান পায়ের বুড়ো আঙুল এবং বাঁ হাত দিয়ে বাঁ পায়ের বুড়ো আঙুল ধরে কনুই দুটো ভাজ করে দু পায়ের পাতা সামনের দিকে টেনে মাথায় ঠেকাতে হবে।

৩. কনুই দুটোকে মাথার দু- পাশে সামনের দিকে রাখতে হবে।

৪. হাঁটু দুটো যতটা সম্ভব সংলগ্ন রাখতে হবে।

৫. অন্তিম অবস্থায় আসনটি কিছু সময় ধরে রাখার পর ধীরে ধীরে প্রারম্ভিক অবস্থায় ফিরে আসবে।

উপকারিতা: পেটে চর্বি ও বায়ু জমতে দেয় না। পিঠ ও কোমরের ব্যথা, কোষ্ঠবদ্ধতা, অম্বল, কোলাইটিস, হাঁপানি রোগে উপকারী। মেরুদণ্ড, কোমর, ঘাড় ও হাঁটুর নমনীয়তা করে।

সতর্কতাঃ উচ্চ রক্তচাপ, ফ্রোজেন শোল্ডার, উগ্র হাড়ের অসুখ, পেশির দুর্বলতা ইত্যাদি থাকলে নিজে থেকে এই আসন না করাই শ্রেয়।

শীতলী প্ৰাণায়ন :

শ্বাসক্রিয়া : শ্বাসক্রিয়া স্বাভাবিক থাকবে।

প্রারম্ভিক অবস্থান ও দেহভঙ্গি:

১. পদ্মাসন, অর্ধপদ্মাসন না করতে পারলে বাবু হয়ে সুখাসনে বসতে হয়। \

২. মেরুদণ্ড সোজা রেখে দু – হাতের তালু দু- হাত সোজা বেথে দু – হাঁটুর উপর রাখতে হয়।

৩. এবার জিভকে নলের মতো সরু করে ধীরে ধীরে শ্বাস টানতে হয়, তার ফলে গলায় শীতল ভাব অনুভূত হবে। বাতাস টানলে একটা মৃদুমন্দ শব্দ শোনা যাবে।

উপকারিতা: হাই ব্লাডপ্রেশার, নার্ভাস টেনশন, স্নায়বিক দুর্বলতা, অবসাদ, ক্লান্তি, একটুতে বেগে যাওয়া, চঞ্চলতা, খিটখিটে মেজাজ প্রভৃতি নিবারণে এই প্রাণায়াম বিশেষভাবে উপকারী। উৎকণ্টা প্রশমিত করে। মনের স্থিরতা নিয়ে আসে।

সতর্কতা : যাদের হাঁপানি আছে, সর্দিকাশির ও ঠান্ডা লাগারধাত আছে, তাদের এই আসন করা ক্ষেত্রে যোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া বাঞ্ছনীয়।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক-২০২১

সপ্তম শ্রেণি

গণিত

Model Activity Task Class 7 Part 6

Model Activity Task Class 7 Part 6 Math

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক সপ্তম শ্রেণী পার্ট ৬ গণিত

f93818d58a374c58ac59d581e1374890 0001 min
f93818d58a374c58ac59d581e1374890 0002 min
f93818d58a374c58ac59d581e1374890 0003 min
f93818d58a374c58ac59d581e1374890 0004 min

উপরের Model Activity Task Class 7 Part 6 এরর পুরোটাই সম্পূর্ণ ভাবে প্রশ্ন উত্তর সহ আলোচনা করা হয়েছে। তোমাদের এই Model Activity Task Class 7 Part 6 কেমন লাগলো সেটা আপনি কমেন্ট করে জানাবে।

এটি তোমাদের ৩০ শে সেপ্টেম্বর এর মধ্যে স্কুলে জমা দিতে বলা হয়েছে তাই জন্য এটা অবশ্যই তোমার বন্ধুদের সাথে Whatsapp, Facebook ইত্যাদিতে শেয়ার করে দিও।

Model Activity Task Class 7 Part 6

বিগত মাসের মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক :

Model Activity Task Class 7 Part 5 August Month | মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

Model Activity Task Class 6 Part 5 August Month | মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button